ব্রেকিংঃ
Home / সকল খবর / সাবেক বনমন্ত্রী হাসান মাহমুদের যৌন-লালসার নিঃস্ব এসপি বাবুলের পরিবার

সাবেক বনমন্ত্রী হাসান মাহমুদের যৌন-লালসার নিঃস্ব এসপি বাবুলের পরিবার

তাজউদ্দীন: একে একে ফাঁস হচ্ছে পুলিশ সুপার (এসপি) বাবুল আক্তারের স্ত্রী হত্যার নেপথ্যের চাঞ্চল্যকর তথ্য। সরকারের সর্বোচ্চ নির্দেশে পুলিশ প্রশাসন এ হত্যাকাণ্ডকে ভিন্নখাতে প্রবাহিত করার চেষ্টা করলেও সাংবাদিকদের অনুসন্ধানে বের হয়ে এসেছে বাবুলের স্ত্রী মাহমুদা আক্তার মিতুর হত্যাকারীর আসল পরিচয়।

অনুসন্ধানে জানা গেছে, চাঞ্চল্যকর এ হত্যার সাথে জড়িত রয়েছে সাবেক বন ও পরিবেশমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের প্রচার সম্পাদক ড.হাছান মাহমুদ। বাবুলের সুন্দরী স্ত্রী মিতুর উপর কুদৃষ্টি পরায় নির্মম হত্যার শিকার হতে হলো তাকে। স্ত্রী হত্যা ও চাকরি থেকে অব্যাহতি দেয়ার মধ্যদিয়ে একটি পরিবারকে একেবারে নিঃশ্বেষ করে দেয়া হলো।

হাসান মাহমুদের ব্যক্তিগত ড্রাইভার সূত্রে জানা গেছে, হাসান মাহমুদের সাথে এসপি বাবুল আক্তারের পারিবারিক পরিচয় ছিল। একে অপরের বাসায় যাওয়া আসাও ছিল। এসময় হাসান মাহমুদের কুদৃষ্টি পরে বাবুল আক্তারের স্ত্রী মিতুর দিকে।

মামলার তদন্তসংশ্লিষ্ট কর্মকর্তার সূত্রে জানা যায়, হাসান মাহমুদ চট্টগ্রামে চাকুরীরত এসপি বাবুল আক্তারকে দিয়ে জঙ্গি দমনের নামে বিরোধীজোটের নেতা কর্মীদের উপর অমানবিক নির্যাতন ও নির্বিচার হত্যাকাণ্ড চালায়। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও তার উপদেষ্টা পুত্র সজীব ওয়াজেদ জয় হাসান মাহমুদকে এ বিষয়ে স্পেশাল দায়িত্ব দেন বলে তিনি বাবুল আক্তারকে জানান।

সরেজমীনে ঘুড়ে ও ভিকটিম পরিবারের সাথে কথা বলে জানা গেছে, সরকারের সর্বোচ্চ পর্যায়ের নির্দেশ পেয়ে কথিত জঙ্গি ধরার অজুহাতে অনেক বিরোধীমতের নেতাকর্মীকে হত্যা করেছে বাবুল আকতার। চালিয়েছে অমানবিক নির্যাতন। মামলা ও গ্রেফতারে জর্জড়িত করে তুলেছে।

চট্টগ্রাম পুলিশের বাবুল আক্তারের অধস্তন এক কর্মকর্তা জানান, এসপি (বাবুল) সাহেব প্রায় বলতেন, আজকে এক্স মিনিস্টার হাসান মাহমুদ সাহেব ফোন করেছেন। প্রধানমন্ত্রী ও জয় সাহেবের নির্দেশ হলো বিরোধীমতের নেতাকর্মীদের জঙ্গি হিসেবে পরিচিত করে তোলা। জঙ্গি দমনের নামে বিরোধীজোটকে দমন করতে বলা হয়েছে।

ব্যক্তিগত ড্রাইভার ও সোর্স আনোয়ারের সূত্রে আরও জানা যায়, এই সময়ে হাসান মাহমুদ ও বাবুল আক্তারের সাথে ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক হয়। এবং সে সম্পর্ক পেশাগত থেকে পারিবারিক সম্পর্কে রূপ নেয়। বাবুল আক্তারের স্ত্রী মিতু খুবই ভদ্র ও রূপবতী ছিলেন। আর তাতেই হাসান মাহমুদের কুদৃষ্টি পরে আক্তারের স্ত্রীর উপর। তিনি বাবুলের অনুপস্থিতিতে গাড়ি পাঠিয়ে দিতেন মিতুকে নিয়ে যেতে। ফ্যামিলি গেটটুগেদারের নামে অবৈধ কামনা চরিতার্থ করার প্রয়াস চালায় হাসান মাহমুদ। এ বিষয়টি বাবুল আক্তারের দৃষ্টিগোচর হয়। এবং মিতুও স্বামীকে জানিয়ে দেয়ার হুমকি দেয়। বাবুল আক্তার ক্ষিপ্ত হয়ে হাসান মাহমুদকে হুঁশিয়ারি দিয়ে বলেন, স্ত্রীর সাথে অশ্লীল আচরণের কারণে তিনি তার নির্দেশে চালানো জঙ্গি নাটকের বিষয়ে মিডিয়ার সামনে মুখ খুলবেন। সব সত্য প্রকাশ করে দিবেন।

বাবুল আক্তারের প্রধান সোর্স মুছার এক ঘনিষ্ঠ সূত্রে জানা যায়, যাতে বাবুল আকতার ক্ষিপ্ত হয়ে আওয়ামীলীগের জঙ্গি নাটকের মুখোশ খুলে না দেয়, সেই কারণেই বাবুলের স্ত্রীকে পরিকল্পনা করে হত্যা করা হয়। চট্টগ্রাম সেচ্ছাসেবক লীগের নেতা হাসান মাহমুদের প্রধান সন্ত্রাসী ক্যাডার এহতেশাম বোলারের মাধ্যমে তাকে হত্যা করা হয়।

বাবুল আক্তারের স্ত্রীকে হত্যা করেই ক্ষান্ত হয়নি হাসান মাহমুদ। ভবিষ্যতে যাতে কোন আইনী ব্যবস্থা নিতে না পারে সেজন্য তাকে জোরপূর্বক চাকরি থেকে পদত্যাগে বাধ্য করা হয়েছে। তাকে রিমাণ্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদের নামে নির্যাতন করা হয়েছে যাতে সে সত্য প্রকাশ না করে। সত্য প্রকাশ করলে তার সন্তানদের হত্যারও হুমকি দেয়া হয়েছে।

অন্যদিকে, সত্য ঘটনা ধামাচাপা দিতে প্রচার সম্পাদক হাসান মাহমুদের নির্দেশে ৫ জুলাই চট্টগ্রামের রাঙ্গুনিয়ায় বাবুল আক্তারের দুই সোর্স নবী ও রাশেদকে কথিত বন্দুকযুদ্ধের নামে হত্যা করা হয়।

এদিকে, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সূত্র জানায়, বাবুল আক্তারকে পুলিশ বিভাগ থেকে অব্যাহতি দেয়া হয়েছে। মন্ত্রণালয়ের পুলিশ শাখার উপ-সচিব ইলিয়াস হোসেন রাষ্ট্রপতির আদেশক্রমে তার এ অব্যাহতিপত্রে স্বাক্ষর করেন।

একদিকে প্রাণপ্রিয় স্ত্রীকে হত্যা অন্যদিকে চাকরিচ্যুত করার মতো অমানবিক আচরণ একমাত্র আওয়ামীলীগের পক্ষেই সম্ভব বলে, ক্ষোভ প্রকাশ করে জানিয়েছেন বাবুলের শ্বশুর। আওয়ামীলীগের অবৈধ ও ফ্যাসিস্ট নির্দেশ পুলিশের যেসব কর্মকর্তারা অক্ষরে অক্ষরে পালন করছে তাদের জন্য বাবুল আক্তারের ঘটনাটি একটি নির্মম উদাহরণ বলে নিরাপত্তা বিশ্লেষকরা মনে করেন।

উল্লেখ্য, গত ৫ জুন ভোরে চট্টগ্রামের জিইসি মোড়ে এসপি বাবুল আক্তারের স্ত্রী মাহমুদা আক্তার মিতুকে গুলি ও ছুরিকাঘাত করে হত্যা করা হয়। ঘটনার ১৯ দিন পর সরকারের নির্দেশে উল্টো স্ত্রী শোকে কাতর বাবুল আক্তরকে খিলগাঁওয়ের ভূইয়া বাড়ির শ্বশুর বাড়ি থেকে বাবুলকে পুলিশ আটক করে। তার দুই সন্তান আখতার মাহমুদ মাহির ও তাবাসুম তাসনিম টাপুর এখন মায়ের শোকে কাতর।

সূত্রঃ নিউজবিডি৭

One comment

  1. khoborti sotto hoteo pare…

Leave a Reply

x

Check Also

সেনাবাহিনী নিয়ন্ত্রনে নেবে ভারত! বিনিম​য়ে ফের ক্ষমতায় হাসিনা! – মোদির প্রতিশ্রুতি

সেনাবাহিনী নিয়ন্ত্রনে নেবে ভারত! বিনিম​য়ে ফের ক্ষমতায় হাসিনা! – মোদির প্রতিশ্রুতি

ভারতের পররাষ্ট্র সচিব ড. এস জয়শঙ্কর এক ঝটিকা সফরে আজ বৃহস্পতিবার দুপুরে ঢাকায় আসছেন। ঢাকাই ...